মেসি জাদুতে প্রতিপক্ষের জালে বার্সেলোনার ৮ গোলের বিশাল জয়


লা লিগায় নবাগত "সোসিয়েদাদ দেপোর্তিভা হুয়েস্কাকে" ৮ গোলে পরাজয়ের মালা পরিয়ে ন্যু ক্যাম্পে স্বাগত জানাল লিওনেল মেসির বার্সেলোনা। যদিও স্প্যানিশ লিগের এই নতুন দলের বিরুদ্ধে দুই গোল হজম করতে হয় বার্সাকে।

এই প্রথমবার লা লিগার আঙিনায় পা দেওয়া হুয়েস্কার বিরুদ্ধে তৃতীয় রাউন্ডের লড়াই ছিল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন বার্সার সঙ্গে। স্বাভাবিকভাবেই এই প্রথমবার নবাগত দলটির মুখোমুখি হয় স্প্যানিশ জায়ান্টরা। ঘরের মাঠে আনকোরা প্রতিপক্ষের প্রতি সতর্ক না থাকার মাশুলও দিতে হয় মেসিদের।

 ম্যাচের তিন মিনিটের মাথায় হার্নান্ডেজের গোলে এগিয়ে যায় হুয়েস্কা। তাকে গোলের পাস বাড়ান লোঙ্গো। যদিও ম্যাচে সমতা ফেরাতে বেশি সময় নষ্ট করেনি বার্সা। ১৬ মিনিটে ব়্যাকিটিচের পাসে গোল করে ম্যাচের স্কোরলাইন ১-১ সমতায় নিয়ে আসেন মেসি।

২৬ মিনিটে জর্জ পুলিদোর আত্মঘাতী গোলে ম্যাচে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ৩৯ মিনিটে জোর্ডি আলবার পাসে গোল করেন সুয়ারেজ।

৪২ মিনিটে তিনি বার্সেলোনার জালে বল ঢুকিয়ে প্রথমার্ধেই একটি গোল শোধ করেন হুয়েস্কার অ্যালেক্স গালার।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে বার্সেলোনার একাধিপত্য প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিপক্ষের ছক বুঝে যাওয়ার পরেই বার বার আক্রমণে হুয়েস্কারকে ভেঙে তছনছ করে দেয় বার্সা স্ট্রাইকাররা। দ্বিতীয়ার্ধে সুযোগ মতো পাঁচ পাঁচটি গোল করেন দেম্বেলে, ব়্যাকিটিচ, মেসি, জোর্জি আলবা ও সুয়ারেজ।

৪৮ মিনিটে সুয়ারেজের পাস থেকে বার্সার হয়ে চতুর্থ গোল করেন দেম্বেলে। ৫২ মিনিটে মোসির পাস থেকে গোল করেন ইশান ব়্যাকিটিচ। ৬১ মিনিটে কুটিনহোর ক্রস থেকে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় এবং দলের হয়ে ষষ্ঠ গোল করেন মেসি। বাকি দু’টি গোল করেন আলবা ও সুয়ারেজের।

৮১ মিনিটে মেসির কাছ থেকে বল ধরো হুয়েস্কার জালে জড়িয়ে দেন ব়্যাকিটিচ। সংযোজিত সময়ে বার্সেলোনা পেনাল্টি পেলে ৯৩ মিনিটে স্পট কিকের মাধ্যমে গোল করেন সুয়ারেজ। ৮-২ ব্যবধানে হুয়েস্কাকে পরাজিত করার সুবাদে সব মিলিয়ে তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠে আসে বার্সেলোনা। গোলপার্থক্যের কারণে তারা পিছনে ফেলে দিল রিয়াল মাদ্রিদকে।

Post a Comment
Powered by Blogger.