বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, ইয়েমেনে সেই বোমা ফেলে মানুষ হত্যা করছে সৌদি


বিগত কয়েক বছর যাবত যুদ্ধে বিধ্বস্ত দেশ ইয়েম। ইয়েমেনে গৃহযুদ্ধ শুরু হয় ২০১৫ সালে। আর সেই থেকে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনে বোমা মেরে হত্যা করতেছে অগনিত মানুষ।

আর রক্ত নিয়ে এই রক্তের হোলি খেলায় সৌদি আরবের জোট সরকারকে সহায়তা করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (এমেরিকা)। কারণ যে বোমা মেরে সেখানে মানুষ হত্যা করা হচ্ছে সেগুলো আসছে যুক্তরাষ্ট্র (এমেরিকা) থেকে। 

সম্প্রতি মার্কিন টিভি নেটওয়ার্ক সিএনএন এর এক তদন্তে এমন তথ্য উঠে আসে। আসার পর মঙ্গলবার নাইমা ইলবাগির এবং সালমা আবদেল আজিজ ও লুরা স্মিথ-স্পার্কের প্রতিবেদেন সেই চিত্র তুলে ধরা হয়েছে সিএনএন এর আয়োতা দিন ওয়েবসাইট ও তাদের নিউজে।

এতে বলা হয় যে, ইয়েমনে চলমান গৃহযুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের (এমেরিকার) সম্পৃক্ততা রয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট হুথি নেতৃত্বাধীন বিদ্রোহীদের বিপক্ষে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। যেখানে সমর্থন রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের (এমেরিকার)। তা কীভাবে ?

ইয়েমেন ভিত্তিক মানবাধিকার গ্রুপ এমওয়াটানা বলছে, যুক্তরাষ্ট্র অস্ত্র বিক্রি করেছে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোটের কাছে। আর তাদের সেই অস্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে ইয়েমেন গৃহযুদ্ধে।

এমওয়াটানার চেয়ারম্যান রাধিয়া আর মুতাওয়াকেল বলেন, প্রতিদিন বিমান হামলার পর আহত ও নিহত ইয়েমেনের নাগরিকদের পাশে পাওয়া যাচ্ছে আমেরিকার অস্ত্র।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রতিদিন যুদ্ধে ইয়েমেনের নাগরিকদের মৃত্যু হচ্ছে। যার জ্বালানি (অস্ত্র) সরবরাহ করছে যুক্তরাষ্ট্র (এমেরিকা)। তাই তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে (এমেরিকাকে) এই অস্ত্র সরবরাহ করা বন্ধ করার আহ্বান জানান।

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.